TadantaChitra.Com | logo

৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | ১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও প্রকল্পে দুর্নীতি: প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের প্রকল্প পরিচালক আজিজুল ইসলামকে দুদকে তলব!

প্রকাশিত : জুন ১৯, ২০২৩, ১২:৫৪

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও প্রকল্পে দুর্নীতি: প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের প্রকল্প পরিচালক আজিজুল ইসলামকে দুদকে তলব!

স্টাফ রিপোর্টার: সীমাহীন অনিয়ম, দুর্নীতি,প্রকল্পের অর্থ লোপাট এবং আয়ের সাথে সঙ্গতিহীন অবৈধ ধন সম্পদ অর্জনের অভিযোগ তদন্তে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের চীফ সায়েন্টিফিক অফিসার (চলতি দায়িত্ব) ও জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় ভেটেরিনারী পাবলিক হেলথ সার্ভিস জোরদারকরণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ডা: মো: আজিজুল ইসলামকে তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

দুদকের নোটিশ স্মারক নং ০০. ০১. ০০০০. ৫০১. ০১. ০০৬. ২৩-২১৫৮৭ তারিখ: ১১/০৬/২০২৩ ইং। দুদকের এই পত্রের প্রেক্ষিতে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক তার দপ্তরের স্মারক নং ৩৩. ০১. ০০০০. ১০১. ২৭. ৮১৭ (২). ১৫-১৪৪১ তারিখ: ১৩/০৬/২০২৩ ইং মুলে ডা: মো: আজিজুল ইসলামকে আগামী ২১/০৬/২০২৩ ইং তারিখে সকাল ১০ টার সময় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হয়ে বক্তব্য প্রদানের জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।
এর আগে গত ১১/০৬/২০২৩ ইং তারিখে দুদকের উপসহকারী পরিচালক ও অনুসন্ধানী কর্মকর্তা সাজ্জাতুল হক স্মারক নং ০০. ০১. ০০০০. ৫০১. ০১. ০০৬.২৩-২১৫৮৭ মোতাবেক ডা: মো: আজিজুল ইসলামকে ২১/০৬/২০২৩ ইং তারিখে সকাল ১০ টায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হয়ে বক্তব্য প্রদানের নিমিত্তে নোটিস প্রেরণ করেন। নোটিশে অভিযোগের সংক্ষিপ্ত বিবরণীতে বলা হয়, ডা: মো: আজিজুল ইসলাম প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ও প্রকল্প পরিচালক প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর ফার্মগেট ঢাকার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়, দুর্নীতির মাধ্যমে কোটি-কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অজনের অভিযোগ।

দুদকের অভিযোগ থেকে জানা যায় ডা: মো: আজিজুল ইসলাম ইতিপুর্বে যে প্রকল্পের পরিচালক ছিলেন সেখানেও বেশুমার অনিয়ম,দুর্নীতি করেন। ফলে তাকে ওই প্রকল্প থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। পরবতীতে তিনি একজন প্রভাবশালী মন্ত্রীর মাধ্যমে তদবীর করে সে যাত্রা রক্ষা পান এবং বর্তমান প্রকল্পের পিডি পদে নিয়োগ পান। নিয়োগ পেয়েই তিনি প্রকল্পের জনবল নিয়োগ, কেনাকাটা ও ঠিকাদার নিয়োগে অনিয়ম ও দুর্নীতি করে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এ বিষয়ে একাধিক লিখিত অভিযোগ জমা পড়ে দুদক ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে। তদপ্রেক্ষিতে দুদক বিষয়টি আমলে নিয়ে প্রাথমিক অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এ বিষয়ে কথা বললে দুদকের অনুসন্ধানী কর্মকর্তা উপসহকারী পরিচালক সাজ্জাতুল হক বলেন,সবেমাত্র নোটিশ ইস্যু করা হয়েছে। দেখি তিনি কি জবাব দেন। তার বক্তব্য শুনারপর পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।
জানতে চাইলে ডা: মো: আজিজুল ইসলাম বলেন, আমার কোন অবৈধ সম্পদ নেই। দুদকে আমার পেশাদার শক্রুরা এ ধরনের মনগড়া অভিযোগ করেছে। আমি জবাব দেওয়ার জন্য প্রস্তুত আছি।


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যলয়

কাব্যকস সুপার মার্কেট, ৩ ডি কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫।

মোবাইলঃ ০১৬২২৬৪৯৬১২, ০১৬০০০১৪০৪০

মেইলঃ tadantachitra93@gmail.com, tchitranews@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

Web Design & Developed By
A

তদন্ত চিত্র কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েব সাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।