TadantaChitra.Com | logo

১২ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | ২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আজ পহেলা ফাল্গুন, বসন্ত এসে গেছে

প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২৪, ০৬:৩৫

আজ পহেলা ফাল্গুন, বসন্ত এসে গেছে

শীতের খোলস পাল্টে প্রকৃতি রূপ বদলাতে শুরু করেছে আরও দু’সপ্তাহ আগে। কান পাতলে কংক্রিটের এ নগরেও শোনা যাচ্ছে কোকিলের কুহু কুহু ডাক। দাখিনা হাওয়ায় প্রাণবন্ত প্রকৃতি। গাছের ডগায় ডগায় সবুজাভ নতুন পাতা। বাগানে বাহারি রঙিন ফুল। ভাষা, সুর, ছন্দ বলছে ‘বসন্ত এসে গেছে…।’

পঞ্জিকার হিসাবে শীতের শেষ দিন ছিল মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি)। অবশেষে শীতের রিক্ততাকে আনুষ্ঠানিক বিদায়। আজ পহেলা ফাল্গুন। ঋতুরাজ বসন্তের প্রথম দিন।

যৌবনদীপ্ত বসন্ত মানেই পূর্ণতা। বসন্ত মানে নতুন প্রাণের কলরব। আনন্দের এ রঙে নাচে কোটি বাঙালির মন। কমলা, বাসন্তী, হলুদসহ বাহারি রঙের পোশাকের সাজে প্রকৃতির সঙ্গে সেজে ওঠে উৎসবপ্রেমীরাও। সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে উৎসব।

এ তো গেলো বসন্ত বরণের কথা! রাত পোহালে তো ভালোবাসার দিনও। মন থেকে মনে ভালোবাসার রঙ ছড়িয়ে পড়ার দিন ১৪ ফেব্রুয়ারি, ভ্যালেন্টাইন ডে।

যদিও ভালোবাসা দিবস উদযাপনের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে আরও এক সপ্তাহ আগেই। ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে একে একে সাতটি দিবস পেরিয়ে আসে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। এ দিনের উদযাপনেই যেন এক সপ্তাহের উতলা মন, হাহাকার, স্বপ্ন, প্রেম, উষ্ণতা পূর্ণতা পায় ভালোবাসা!

শুধু উচ্ছ্বল তরুণ-তরুণীই নয়, সব বয়সের মানুষের ভালোবাসার বহুমাত্রিক প্রকাশের আনুষ্ঠানিক দিনও আজ। এ ভালোবাসা যেমন মা-বাবার প্রতি সন্তানের, তেমনি মানুষে-মানুষে ভালোবাসাবাসির দিনও এটি।

বাঙালির চিরায়ত বসন্ত বরণ, সঙ্গে ভালোবাসার দিবস—জোড়া উৎসবে দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি, চারুকলার বকুলতলা, রবীন্দ্র সরোবর, রমনা পার্ক, হাতিরঝিলে যতদূর চোখ যায় দেখা মেলে তরুণ-তরুণীদের।

শুধু রাজধানী নয়, দেশে বিভিন্ন উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিনোদনকেন্দ্র, সাংস্কৃতিক অঙ্গন, শপিংমল, রেস্তোরাঁ ও পাঁচ তারকা হোটেলে ছড়িয়ে পড়ে আনন্দের আমেজ। ভালোবাসাময় বসন্তের রঙে বাঁধ ভাঙে সব বয়সী মানুষের উচ্ছ্বাস।

বইমেলায় বসন্ত-ভালোবাসার দোলা
ভাষার মাসের প্রথম দিনে শুরু হয়েছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা। এবার শুরু থেকেই জমজমাট মেলা। তা আরও জমবে বসন্ত বরণ ও ভালোবাসা দিবসে। টিএসসি, বাংলা একাডেমি চত্বর, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান হয়ে উঠতে পারে বাসন্তী রঙে সাজা তরুণ-তরুণীদের উৎসবের তীর্থস্থান।

বাসন্তী রঙের শাড়ি আর খোঁপায় গাঁদা ফুল গুজে মেলায় আসবেন তরুণীরা। তরুণরা পরবেন বাসন্তী রঙের পাঞ্জাবি-ফতুয়া। আঙুলে আঙুল রেখে ঘুরবেন শহরে নানা জায়গায়। সবশেষে হয়তো আসবেন বইমেলায়। মনের মানুষকে লাল গোলাপের সঙ্গে উপহার দেবেন প্রিয় লেখকের বই। ফলে বসন্ত-ভালোবাসার দিনে বইমেলায় থাকবে ভিন্ন আমেজ।

বসন্ত ও অধিকার আদায়ে আন্দোলন
বাঙালি জীবনে বসন্ত যেন হাজির হয় অধিকার আদায়ের আওয়াজ নিয়েও। বসন্ত আর অধিকারের আন্দোলনও মিলেমিশে একাকার। বসন্তের আগমন বায়ান্নের সেই ফাল্গুন মনে করিয়ে দেয়। যেদিন পিচঢালা রাজপথে শাসকের গুলিতে ভাষা শহীদরা করেছিলেন প্রাণোৎসর্গ। বসন্তেই বাঙালি নেমেছিল মহান মুক্তিযুদ্ধে।

আবার বসন্ত মনে করিয়ে আশির দশকের স্বৈরাচার হটাও আন্দোলনে ঝরেপড়া শিক্ষার্থীদের রক্তের কথা। বসন্তেই ২০১৩ সালে নতুন প্রজন্ম জেগে উঠেছিল গণজাগরণে। একাত্তরের মানবতাবিরোধীদের বিচার এ বাংলায় হতেই হবে দাবি নিয়ে আবারও এক হয়েছিল ওরা। তাই কেবল প্রকৃতি আর মনে নয়, বাঙালির জাতীয় ইতিহাসেও বসন্ত আসে বারবার।

এদিকে, বসন্ত বরণ ও ভালোবাসা দিবস উদযাপনে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক, সামাজিক সংগঠন নানা আয়োজন করে থাকে। এবারও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন জায়গায় রয়েছে নানা আয়োজন। অন্যদিকে দিবসটি উপলক্ষে প্রিয়জনকে বিভিন্ন ধরনের উপহার দেন অনেকেই। এখন অনলাইনের সুবিধা থাকায় অনেকেই অনলাইন উপহার পাঠান প্রিয়জনকে।


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যলয়

কাব্যকস সুপার মার্কেট, ৩ ডি কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫।

মোবাইলঃ ০১৬২২৬৪৯৬১২, ০১৬০০০১৪০৪০

মেইলঃ tadantachitra93@gmail.com, tchitranews@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

Web Design & Developed By
A

তদন্ত চিত্র কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েব সাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।