TadantaChitra.Com | logo

২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ৭ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

মিথ্যা কথা বলে, ঘুষ খায় আইনজীবীরা!

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৯, ১৬:২৫

মিথ্যা কথা বলে, ঘুষ খায় আইনজীবীরা!

এই অভিযোগ দুটি শুধু যে গ্রামের অশিক্ষিত লোকগুলোই করে, তা নয়! অনেক তথাকথিত শিক্ষিত, উচ্চ শিক্ষিত লোকেরাও এই সংকীর্ণ চিন্তার অধিকারী। তাদের জন্যেই আজকের পোষ্ট!

১.আমাদের সমাজের অনেকেই ‘পারিশ্রমিক’ এবং ‘ঘুষ’ এর পার্থক্য বোঝেনা। একজন ব্যক্তি ‘কায়িকশ্রম’ অথবা ‘মেধাশ্রমের’ মাধ্যমে যা অর্জন করে, সেটাই তার ‘পারিশ্রমিক।’ এই ‘পারিশ্রমিক’ যে সবসময় শারীরিক শ্রমের মাধ্যমে হতে হবে, এমনটি নয়।

যেমন: একজন রিকশাওয়ালা ‘কায়িকশ্রমের’ মাধ্যমে যা উপার্জন করে, সেটা তার ‘পারিশ্রমিক’। আবার, একজন ডাক্তার ওথবা একজন আইনজীবী তার ‘মেধাশ্রমের’ মাধ্যমে যা উপার্জন করে, সেটা তার ‘পারিশ্রমিক।’

অপরদিকে, ‘নির্দিষ্ট বেতন’ বা ‘পারিশ্রমিকের’ বাইরে অতিরিক্ত উৎকোচ গ্রহণ করাকে ‘ঘুষ’ বলে।

যেমন: পুলিশকে সরকার থেকে তার কাজের জন্য বেতন দেয়া হয়। এই বেতনের বাইরে সে যদি জনসাধারণের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করে, তবে তা হবে ‘ঘুষ’, যা সম্পূর্ণ অবৈধ এবং হারাম।

একজন আইনজীবী বেতনভুক্ত নয়। তিনি প্রাইভেট প্রাকটিশনার, যেমন আরেকটি হলো একজন ডাক্তার। সেক্ষেত্রে একজন ডাক্তারের ‘পারিশ্রমিককে’ যদি ‘ঘুষ’ বলা না হয়, তবে এই অশিক্ষিত লোকগুলো কোন যুক্তিতে আইনজীবীদের ‘পারিশ্রমিককে’ ঘুষ বলে?

২. Advocate শব্দকে ভাংলে পাওয়া যায় add+vocal. অর্থাৎ, অন্যের vocal কে যে add করে উপস্থাপন করে, তাকে Advocate বলে। একজন ব্যক্তি যদি আদালতে নিজের কথা নিজেই গুছিয়ে বলতে পারে, তবে তার আইনজীবীর কোনো প্রয়োজন নেই। তবে তা হতে হবে আইনের ভাষায়। বিচার চাইতে এসে ‘মামা বাড়ির তাল পাঁকার গল্প করলে হবেনা’। আর এজন্যেই প্রয়োজন হয় একজন পেশাদার আইনজীবীর, যে কিনা তার কথাগুলিই আইনের ভাষায় আদালতে বলে। এখানে আইনজীবী তার ব্যক্তিগত কোনো কথা বলেন না। মক্কেল যা বলতে চায়, আইনজীবীর কাজ হচ্ছে তাই আইনের ভাষায় আদালতকে অবহিত করা। সত্য-মিথ্যা যাচাই করার জন্যে জজ-ই আছেন। আইনজীবী এখানে একজন Mediator এর কাজ করেন, আর কিছুই না। সেক্ষেত্রে বলা যায়, আইনজীবী একবর্ণ-ও মিথ্যা বলেনা।

ব্যাখ্যা- আইনজীবীকে নির্দিষ্ট একটা ফরমেট বা plaint অনুযায়ী কথা বলতে হয়। চাইলেই বাড়িয়ে বলতে পারেনা। আর এই plaint বা ‘আরজির’ শেষে থাকে ‘সত্যপাঠ’, যার নিচে মক্কেলের স্বাক্ষর থাকে। তার মানে হলো, ‘আরজিতে’ বর্ণিত সকল কথাই মক্কেলের। এখানে আইনজীবী চাইলেও বাড়িয়ে কিছু বলতে পারবে না। এখানে আইনজীবী শুধুই একজন মাধ্যম, আর কিছুই না।

অতএব, দাবি থাকল সঠিক তথ্য না যেনে, আইনজীবীদের সম্বন্ধে ঢালাও মন্তব্য করা থেকে বিরত থেকে নিজের শিক্ষাকে গৌরবমন্ডিত করবেন।


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যলয়

৪৭৩ ডিআইটি রোড তৃতীয় তলা, মালিবাগ রেইল গেট, ঢাকা-১২১৯

মোবাইলঃ ০১৯৭২৬৪৯৬১২, ০১৬২২৬৪৯৬১২

মেইলঃ tadantachitra93@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

error: Content is protected !!