TadantaChitra.Com | logo

১২ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং

 

 

প্রতারক জাহিদ বাবুকে ধরিয়ে দিলে পুরষ্কার!

প্রকাশিত : জানুয়ারি ১১, ২০২০, ১৩:০৭

প্রতারক জাহিদ বাবুকে ধরিয়ে দিলে পুরষ্কার!

স্টাফ রিপোর্টার: একে ধরিয়ে দিন। এর নাম জাহিদ হাসান বাবু, প্রতারণা মামলায় তার বিরুদ্ধে রয়েছে গ্রেফতারী পরোয়ানা। সন্ধান দাতাকে আকর্ষণীয় পুরষ্কারপ্র্রদান করা হবে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ী মো. সুজন মিয়া।

সুজন মিয়া অভিযোগে জানান, বেশ কয়েক বছর আগে তার এক নিকটাত্মীযের মাধ্যমে পরিচয় হয় এই জাহিদ হাসান বাবু, পিতা- সুলতান মিয়া, মাতা- হালিমা বেগম, গ্রাম- উত্তর রাম নারায়ণপুর (মুন্সিবাড়ি), থানা- চাটখিল, জেলা- নোয়াখালী’র সাথে। সেই থেকে ঘনিষ্ঠতা, সম্পর্ক অনেকটা পারিবারিক রূপ নেয়। শুরু হয় ব্যবসা সম্পর্কিত আর্থিক লেনদেন। এভাবে বিশ্বস্ততার এক পর্যায়ে গত ২০১৮ সালের ১ অক্টোবর তিনশত টাকার স্ট্যাম্পে চুক্তি করে সুজন মিয়ার কাছ থেকে নগদ ১৩ লাখ টাকা লোন নেয় জাহিদ বাবু। এরপর একই বছরের ৭ ডিসেম্বর তারিখে সুজন তাকে ব্যাংকের মাধ্যমে আরো ১২ লাখ টাকা প্রদান করে। কথা ছিলো গত ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারীতে জাহিদ বাবু- সুজন মিয়াকে সকল পাওনা পরিশোধ করবে। কিন্তু জাহিদ বাবু প্রথমে কয়েক মাস লভ্যাংশের টাকা পরিশোধ করে হঠাৎ গা ঢাকা দেয়। সুজন মিয়া তার সম্ভাব্য সব জায়গায় জাহিদ বাবুর সন্ধান করে খুঁজে না পেয়ে ২০১৯ সালের ৩ জুন ঢাকা জেলা ডিবি (উত্তর) এর কাছে সহায়তা চেয়ে একটি আবেদন করে।
কিন্তু এখন পর্যন্ত জাহিদ বাবুর কোন সন্ধান মিলছে না। এমতাবস্থায় কষ্টার্জিত ২৫ লাখ টাকার শোকে দিশেহারা সুজন মিয়া। সুজন মিয়া জানান, খোঁজ নিতে গিয়ে জানাগেছে জাহিদ বাবু এমনি করে আরো অনেকের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা নিয়েছে ব্যবসার কথা বলে। এখন সকল পাওনাদারই তাকে খুঁজে বেড়াচ্ছে। প্রতারণার এখানেই শেষ নয়। জাহিদ বাবুর রয়েছে একাধিক জন্ম সনদ। এর মধ্যে গত ২৫-০৮-২০১৪ তারিখে চাটখিলের রাম নারায়ণপুর ইউপি থেকে মো. মেহেদী হাসান বাবুল, পিতা- মৃত সুলতান আহমেদ, মাতা- হালিমা বেগম নামে জন্ম সনদ প্রদান করা হয়। যাতে তার জন্ম তারিখ ১০ জানুয়ারী ১৯৮৩ দেখানো হয়েছে। অপরদিকে সাভার পৌরসভা, ঢাকা থেকে গত ৯ জানুয়ারী ২০১৯ তারিখে প্রদেয় অপর জন্ম নিবন্ধনে মো. জাহিদ হাসান বাবু, পিতা- সুলতান আহমেদ, মাতা- হালিমা বেগম এবং জন্ম স্থান ও স্থায়ী ঠিকানা- এ ১৫১/১ তেঁজকুনি পাড়া, ঢাকা উল্লেখ রয়েছে। আর জন্ম তারিখ দেখানো হয়েছে ১০-০৮-১৯৭৬। উল্লেখ্য তার জাতীয় পরিচয়পত্রেও এই নাম ঠিকানা উল্লেখ করা হয়েছে। এতে দেখা যায়, জাহিদ বাবু নিজের নাম জন্ম ও ঠিকানাতে গড়মিল করেছেন প্রতারণার উদ্দেশে। এভাবে যেখানে যেমন পরিচয় দিয়ে নিজেন আখের গোছান।
প্রতারণার অভিযোগে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট, ঢাকা’র একটি গ্রেফতারী পরোয়ানা রয়েছে তার বিরুদ্ধে। যার সি আর নং ৮৯৪, ধারা- ৪০৬/৪২০/৫০৬ দ:বি: ।
এমতাবস্থায় ভুক্তভোগী সুজন মিয়া প্রতারক জাহিদ বাবুর সন্ধান দিতে দেশের প্রশাসন ও জনগণের সহযোগিতা কামনা করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, এই প্রতারককে ধরিয়ে দিলে তিনি সন্ধান দাতাকে আকর্ণীয় পুরষ্কার দেবেন।


যোগাযোগ

বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যলয়

৪৭৩ ডিআইটি রোড তৃতীয় তলা, মালিবাগ রেইল গেট, ঢাকা-১২১৯

মোবাইলঃ ০১৬২২৬৪৯৬১২

মেইলঃ tadantachitra93@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

error: Content is protected !!